সিলেট জেলা আ’লীগের কাউন্সিলে আলোচনায় মুহিবুর

প্রকাশিত: ৫:৩৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৪, ২০১৯

সিলেট জেলা আ’লীগের কাউন্সিলে আলোচনায় মুহিবুর

এমদাদুর রহমান চৌধুরী জিয়া,:: সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনকে সামনে স্ব-স্ব অবস্থানকে সুদৃঢ় মাঠে কাজ করছেন প্রার্থীরা। সে ক্ষেত্রে রয়েছে তৃনমূলের পছন্দ অপছন্দের কথা। আর সরকারে সুদ্ধি অভিযানকে ফলো করে তৃণমূল থেকে শুরু করে উপজেলা, জেলা ও মহানগরের দলীয় নেতৃত্বে বসাতে চান না সাধারণ মানুষের কাছে সমালোচিত কোন নেতা সংগঠনের নেতা কর্মীরা। আর সে কারণেই সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে আলোচনায় এখন মুহিবুর রহমান।
মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মরহুম কলমদর আলীর পুত্র সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে প্রার্থী হয়ে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন। প্রার্থী হিসেবে অনেকের নাম থাকলেও আলোচনায় শীর্ষে কয়েকজনের মধ্যে মুহিবুরও একজন।
বিশ্বনাথ উপজেলার দুইবারের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান আশির দশকে সিলেট জেলা আ’লীগের সদস্য পদ লাভ করেন। তার পিতা মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম কলমদর আলী ছিলেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী প্রথম বাঙালি, যিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে লন্ডন থেকে একটি ফিল্ড হসপিটাল (জীপ গাড়ি) নিয়ে ভারতে যান এবং নগদ প্রবাসী সরকারের ফান্ডে নগদ ৫০ হাজার টাকা জমা দেন। মুজিব আদর্শের সৈনিক তরুণ মুহিবও তখন পিতার সাথে প্রবাসী সরকারকে সহায়তা প্রদানের জন্য অর্থ সংগ্রহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ’৭৫এর ১৫ই আগস্টের নির্মম হত্যাকান্ডের পর মুহিব যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সদস্য মনোনীত হন। পরবর্তী সময়ে দেশে আসার পর বিশ্বনাথ উপজেলা

 

আওয়ামী লীগের অর্থ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। ১৯৮০ সালে বৃহত্তর সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ সম্মেলন প্রস্তুতি উপ কমিটির আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেন।
১৯৮৫ ও ২০০৯ সালে নির্বাচিত হন উপজেলা চেয়ারম্যান। সে সময়ের প্রভাবশালী বিএনপি নেতা এম.ইলিয়াস আলীর অনেক রোষানলের শিকার হতে হয় তাকে। সকল ষড়যন্ত্রের বেড়াজাল ভেঙে তিনি উপজেলা এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।
আসন্ন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রার্থীতা প্রসঙ্গে মুহিবুর রহমান বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন পর্যালোচনা করে দলকে সুসংগঠিত এবং অধিক শক্তিশালী করে তুলতে সম্মানিত নেতাকর্মীরা আমার উপর আস্থা রাখবেন এবং আমাকে মূল্যায়ন করবেন। এক্ষেত্রে আমি হলফ করে বলতে পারি, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বার্থক কারিগর বঙ্গকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মসূচি বাস্তবতায়নে যদি আমার উপর গুরু দায়িত্ব অর্পিত হয় তাহলে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে আমি কখনও পিছপা হবো না।

 

সিলেটপ্রেসডটকম /২৪ নভেম্বর ২০১৯/এফ কে  

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ