মোটর সাইকেল চালকের উপর অটোরিকশা চালকদের হামলা, লুটপাটের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৮:৫১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০১৯

মোটর সাইকেল চালকের উপর অটোরিকশা চালকদের হামলা, লুটপাটের অভিযোগ

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের রহিমের পাড়া গ্রামের রহিমের পাড়া সিএনজি স্ট্যান্ডের ড্রাইভাররা অর্তকিত হামলা চালিয়ে ছাতক উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের দারগাখালী গ্রামের মৃত মনু মিয়ার ছেলে ছাতক রাফি এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি সুজন মিয়া ও তারই মামাতু ভাই দারগাখালী গ্রামের রহিম আলীর ছেলে ছালেহ আহমদ বুলবুলকে এলো পাথারি ভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে নগদ টাকা লোট করে নিয়ে জায়।
ঘটনা ও অভিযোগ সুত্রে জানা যায় সুজন মিয়া একজন চুনাপাথর ব্যবসা কাজে চেলা নদীতে আমদানী কাজে নিয়োজিত প্রতিদিন এই রাস্তায় চলাচল করে। শনিবার (৩০নভেম্বর) ১ টার সময় সুজন মিয়া ও তারই মামাতো ভাই ছালেহ আহমদ বুলবুল মোটর বাইকে রহিমের পাড়া সিএনজি স্ট্যান্ডে আসামাত্র মোটর গাড়ি থামিয়ে যাত্রীবাহি মোটর গাড়ি চালক ও যাত্রী মনে করে মাইর পিট শুরু করে দুজনকে মেরে গুরুতর আহত করে নগদ ব্যাগ ভর্তি ২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা লোট করে চিনিয়ে নিয়ে যায়।

লোটপাটকারী রহিমের পাড়া ষ্ট্যান্ডের ড্রাইবাররা হলেন, দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের মন্তাজ নগর গ্রামের মজমিল আলীর পুত্র খলিল মিয়া (৪০), রহিমের পাড়া গ্রামের মৃত আয়ুব আলীর পুত্র লিটন(৩৫)। ছাতক উপজেলার হাদা চাঁনপুর গ্রামের রহমত আলীর পুত্র তেরা মিয়া, মন্তু মিয়ার পুত্র মিলন মিয়া(২৫).আব্দুল গফুরের পুত্র আঃ ছোবান(৩৮). গৌছ মিয়া পিতা অজ্ঞাত, মশাহিদ মিয়া, আলী হোসেন, লাল মছব্বির, আজিজ মিয়া, লায়েক মিয়া সহ আরও কয়েক জন।

সুজন মিয়া বলেন, আমরা বার বার চিৎকার করে বলেছি আমরা প্রাইভেট মোটর বাইক ব্যবসায়ি কাজে এসেছি। তবু বাঁধা অমান্য করে আমাদের কে মেরে রক্তাক্ত করে নগদ ২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা লোটপাট করে ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
এব্যাপারে দোয়ারাবাজার থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) আবুল হাসেম বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরো পড়ুন : সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের কুমারগাঁও বাস টার্মিনাল অংশ যেন মরণ ফাঁদ

সিলেটপ্রেসডটকম /০১ ডিসেম্বর ২০১৯/এফ কে  

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ