বেশি পেঁয়াজ আমদানি করে বেকায়দায় চাঁদপুরের ব্যবসায়ীরা

প্রকাশিত: ২:১৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

বেশি পেঁয়াজ আমদানি করে বেকায়দায় চাঁদপুরের ব্যবসায়ীরা

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: ব্যবসা ভালো হবে এমন আশায়- বেশি পেঁয়াজ আমদানি করে বেকায়দায় পড়েছেন চাঁদপুরের ব্যবসায়ীরা। ফলে লাভ তো দূরের কথা লোকসানের অঙ্ক গুনতে হচ্ছে তাদের।

শুধু তাই নয়, মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়া পচা পেঁয়াজ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন পাইকারি ব্যবসাকেন্দ্র পুরানবাজারের শতাধিক ব্যবসায়ী। রবিবার দিনভর প্রসিদ্ধ এই পাইকারি বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।
পাইকারি ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান গত শনিবার রাতে কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে ১২ মেট্রিকটন পেঁয়াজ চাঁদপুরে নিয়ে আসেন। মিয়ানমার থেকে আমদানি করা এই পেঁয়াজ চাঁদপুরে পৌঁছানো পর্যন্ত পরিবহন খরচ মিলে প্রতিকেজির দাম পড়েছে ২০৫ টাকা। কিন্তু রবিবার সকালে তা বিক্রি করতে গিয়ে কেজিপ্রতি ২০০ টাকায়ও কেউ নিচ্ছে না। ফলে পেঁয়াজের পেছনে মোটা অঙ্কের টাকা লগ্নি করে ব্যবসায়ী আব্দুর রহমানের কপালে এখন দুশ্চিন্তার ভাঁজ। তিনি জানালেন, যে মানের পেঁয়াজ এনেছি তা আগামী ২/১ দিনের মধ্যে বিক্রি করতে না পারলে সব পেঁয়াজ পচে যাবে।

রফিকুল ইসলাম নামে আরেক ব্যবসায়ী জানালেন, বাজার অস্থিতিশীল থাকায় পেঁয়াজ বিক্রি অনেক কমে এসেছে। এতে ব্যবসায়ীরা কেউ কেউ অলস সময় পার করছেন।

চাঁদপুর পেঁয়াজ ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দিন মোল্লা জানান, মূলত ভারতীয় পেঁয়াজ আমাদানি না হওয়ায় এখানকার ব্যবসায়ীরা মিয়ানমারসহ অন্যান্য দেশের পেঁয়াজের প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। তার ওপর বেশি দামে পেঁয়াজ ক্রয় করে এখন ক্ষতির মুখে পড়েছে। বেচাবিক্রি ভালো না হওয়ায় অনেকের পেঁয়াজ পচে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

সমিতির সভাপতি মোস্তফা মুন্সি জানান, অন্যবছর মৌসুমের এই সময় ৫-৬ শ মেট্রিকটন পেঁয়াজ চাঁদপুরে আমদানি হতো। বাজার অস্থিতিশীল হওয়ায় তা এক শ টনের নিচে নেমে এসেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাঁদপুরের পাইকারি ব্যবসায়ীরা সরাসরি বিদেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি না করলেও দেশের বড় বড় আমদানিকারকদের কাছ থেকে তারা পেঁয়াজ সংগ্রহ করেন। আর সেই পেঁয়াজ জেলার চাহিদা মিটিয়ে আশপাশের জেলায় সরবরাহ করা হয়।

এদিকে, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চাঁদপুরের পেঁয়াজের দরদাম মনিটরিং করা হচ্ছে। এমনটা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান। অন্যদিকে, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সামিউল ইসলাম এবং মার্কেটিং অফিসার রেজাউল করিম আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়ে পুরানবাজারে পেঁয়াজের পাইকারি বাজারে ঝটিকা অভিযান চালিয়েছেন। এই সময় বাড়তি দাম না নিতে ব্যবসায়ীদের সতর্ক করে দেন তারা। তবে বাড়তি দাম নেওয়ার অভিযোগে একজন ব্যবসায়ীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অর্থদণ্ড আদায় করা হয়।

সিলেটপ্রেসডটকম/১৭ নভেম্বর ২০১৯/ কামরুজ্জামান

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •