ডিবি পুলিশের সাজানো নাটকে জেলে মেধাবী শিক্ষার্থী আপ্তার, মুক্তি চায় এলাকাবাসী

প্রকাশিত: ৬:০৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৯

ডিবি পুলিশের সাজানো নাটকে জেলে মেধাবী শিক্ষার্থী আপ্তার, মুক্তি চায় এলাকাবাসী

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: এলাকার শান্তি প্রিয় ছেলে আপ্তার হোসেন। লেখাপড়ায় সে অনেক ভাল। ল কলেজের একজন মেধাবী শিক্সার্থীও সে। এলাকায় তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই। ডিবি পুলিশের এক সদস্যের সঙ্গে তার চলাফেরা ছিল। গোয়েন্দা পুলিশের ওই সদস্য তার সঙ্গে সখ্যতা বাড়িয়েই এক বস্তা ফেনসিডিলসহ তাকে ফাসিয়েছেন। এটি একটি সাজানো নাটক। ডিবি পুলিশ ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদফতর মিলে এই নাটক নির্মাণ করেছেন বলে মানববন্ধনে বক্তারা একথাগুলো বলেন। বক্তরা অবিলম্বে সম্পূর্ণ মিথ্যা, সাজানো এবং উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত মামলায় আটক নিরীহ আপ্তার হোসেনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান। মঙ্গলবার বিকালে শহরতলীর ধোপাগুল পয়েন্টে খাদিমনগর ইউনিয়নবাসীর উদ্যোগে এই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।

দাপনাটিলা জামে মসজিদের মতোয়াল্লি লাল মিয়ার সভাপতিত্বে ও অগ্রগামী সমাজ সমাজ কল্যাণ সংস্থার সাধারন সম্পাদক ইয়াকুব আলীর পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ৩নং খাদিমনগর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার নাজিম উদ্দিন অন্যানের মধ্যে বক্তব্য দেন ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোক্তার হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান, অগ্রগামী সমাজকল্যাণ সংস্থার সভাপতি হারিছ আলী, সহ-সভাপতি হারুন রশিদ, আব্দুল জব্বার, বিশিষ্ট মুরব্বি আব্দুন নুর, নুর আলী, মাসুক মিয়া, ছালিয়া গ্রামের বুরহান উদ্দিন, রংপিটিলা গ্রামের সিকান্দার আলী, কুতুব উদ্দিন, রাহের আলী, জাহাঙ্গীর, বাদশা মিয়া, উন্দারপারা গ্রামের আরমিছ আলী, ছাইফুল ইসলাম।

অন্যানের মধ্যে মানবন্ধনে একাত্মতা পোষন করেন- আখলাক আহমদ, মো. সুরুজ, রুবেল, জলিল মিয়া, বাদশা, শিপন, নাজিম উদ্দিন, ময়বুর, নাজিম, আমিন, আফিফ, রেদওয়ান, শাহিন, সোলেমান, মো. হাবিবুর রহমান, মো. আবদউল রহিম, মো. লাল মিয়া, আব্দুন নুর, বোরহান, হারুন, মুজিব, তানভীর, নাজমুল, তামীম, সানোয়ার, মামুল, আকন্দ মিয়া, সুমন, নান্টু দাস, মাহুক মিয়া, নুর আলী, বাবুল, রামলাল, কাইয়ূম আহমদ, আবু সুফিয়ান, মানিক মিয়া, শাহরিয়ার শুভ, জাকির, নিজাম, খলিল, ফরিদ, নুর উদ্দিন, মন্তাজ মিয়া, আতিক মিয়া, মানিক মিয়া, কাওছার মিয়া, বিপ্লব মিয়া, মো. ইউসুফ আলী, মো. মনাফ, জুবের, ইয়াকুব আলী প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা আরো বলেন, এ বিষয়টি তার পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশ কমিশনার বরাবর লিখিতভাবেও জানানো হয়েছে। কিন্তু ঘটনার ১২ দিন পেরিয়ে গেলেও যথাযত ব্যবস্থা না নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন বক্তারা। অবিলম্বে নিরীহ আপ্তার হোসেনের নি:শর্ত মুক্তি দাবি কওে বলেন, এখন যে সময় পড়েছে তাতে কোন খারাপ লোকের পক্ষ নিয়ে লোকজন এভাবে সমবেত হয়না। মানবন্ধনে উপস্থিত লোকজনই প্রমাণ করে আপ্তার হোসেন একজন নিরপরাধ। সকলেই তার মুক্তি চায়।

সিলেটপ্রেস /২২ অক্টোবর ২০১৯/ কামরুজ্জামান

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •