শীতে ছেলেদের পোশাক

 
 

৫৪৩

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: বাতাসে শীতের আমেজ। নগরের মোড়ে মোড়ে পিঠার দোকান আর হঠাৎ হঠাৎ হিমেল হাওয়া জানিয়ে দিচ্ছে এখন সময় শীতের। শীত মানেই ফ্যাশনে নতুনত্ব। তবে ফ্যাশনের দুনিয়া শুধু মেয়েদের একচেটিয়া দখলে নয়, ছেলেদেরও সেখানে সমান ভাগ রয়েছে। ছেলেরাও এখন ফ্যাশন নিয়ে অনেক সচেতন। ছেলেদের কোট, জ্যাকেট, ব্লেজার, সোয়াটার, কটি ইত্যাদি বাজারে আসা শুরু হয়েছে এরমধ্যেই। পশ্চিমা ট্রেন্ড মেনেই নকশা করা হচ্ছে এসবের, তবে কাপড়টা এ দেশের আবহাওয়া উপযোগী।

ডেনিম, ফ্লানেল, কর্ড, উল, মোটা ক্যানভাসের কাপড়, প্যারাসুটের কাপড় এবং চামড়ার তৈরি জ্যাকেট পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। এর মধ্যে এখন জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে ডেনিম ও চামড়ার জ্যাকেট। চামড়ার স্থায়িত্ব, আরাম, রং ও টেক্সচারের জন্য গ্রহণযোগ্যতাও বেশি। চামড়ার জ্যাকেটের জনপ্রিয় কিছু স্টাইল হচ্ছে বেসিক ওয়েস্টলেস জিপ ফ্রন্ট জ্যাকেট, ক্লাসিক লেন্থ জিপ ফ্রন্ট কিংবা টু বাটন, ফোর বাটন জ্যাকেট, ভেলেন্ট লেদার রাইডিং জ্যাকেট, ইলাস্টিকসহ বোম্বার স্টাইল জ্যাকেট, মোটরবাইক, মিলিটারি, এভিয়েটর, রকস্টার, পাঙ্ক, পুলিশ জ্যাকেট ইত্যাদি।

পুরোদস্তুর আনুষ্ঠানিক ব্লেজার নয়, ক্যাজুয়াল ব্লেজারই বেশি চলছে বাজারে। চামড়ার জ্যাকেটে আছে নানা রঙের খেলা। ইস্পাতের বোতামের ব্যবহার জ্যাকেটগুলোকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে। চামড়ার এক রঙের জ্যাকেট ছাড়াও আছে চেকের নকশার জ্যাকেট। কোনোটিতে আবার কাপড়ের সঙ্গে চামড়ার ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া ডেনিম কাপড়ের তৈরি নানা ধরনের ব্লেজার চলছে এবারও। নতুন ট্রেন্ড হিসেবে মখমলের নকশা করা ব্লেজার এসেছে এবার। জ্যাকেট ও সেমি-স্যুট ধাঁচের এসব মখমলের পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে পড়তে পারেন উজ্জ্বল রঙের প্যান্ট।

একের ভেতর দুই অর্থাৎ অফিসে পরা যায় আবার বাইরে কোনো পার্টিতেও ঠিকমত মানিয়ে যায়, এমন ব্লেজার কিনছেন অনেকে। জ্যাকেট বা ব্লেজারের ভেতরে আগে একটা সাধারণ কাপড় ব্যবহার করা হতো। কিন্তু এবার সেখানে নকশার অংশ হিসেবেই দেখা যাচ্ছে বৈচিত্র্যময় কাপড়।

শীতের সকালে শাল ছাড়া যেন শরীরে উষ্ণতা আসে না। তবে শুধু শীতের পোশাক হিসেবেই নয়, ফ্যাশন অনুষঙ্গ হিসেবেও আজকের প্রজন্মের কাছে শালের রয়েছে আলাদা কদর। শালের বুননে কিংবা বিভিন্নরকম উপাদানের কারুকাজে ফুটে উঠছে বিভিন্ন রকম নকশা। ছেলেরা পারিবারিক কোনো অনুষ্ঠানে গায়ে জড়িয়ে নিতে পারেন পছন্দের শাল

দরদাম
চামড়ার জ্যাকেট কেনা যাবে ২০০০ থেকে ৬০০০ টাকায়। ব্লেজারের দাম পড়বে ১৮০০ থেকে ৪৫০০ টাকা, গ্যাবার্ডিন কাপড়ে তৈরি ব্লেজারের দাম পড়বে ১২০০ থেকে ৩০০০ টাকা, রেইনকোটে যে ধরনের কাপড় ব্যবহার হয় তেমন চকচকে পানিরোধী উপাদানে তৈরি পাতলা জ্যাকেটের দাম পড়বে ২০০০ থেকে ৩৫০০ টাকা, মখমলের ব্লেজারের দাম পড়বে ৪০০০ থেকে ৬০০০ টাকার মধ্যে, মোটা সুতি কাপড়ের ব্লেজারের দাম ৫০০০ টাকার মধ্যে। খাদি কাপড়ের তৈরি ব্লেজারগুলোর দাম শুরু ১২০০ টাকা থেকে।