নৌকায় ভোট দিয়ে মানুষের সেবা করার সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী

 
 

2312সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট চাইলনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্র শখে হাসনিা। তনিি বলনে, ‘আপনারা নৌকায় ভোট দয়িে মানুষরে সবো করার সুযোগ দনি।’ রববিার (৩১ ডসিম্বের) যশোর ঈদগাহ মাঠে জলো আওয়ামী লীগ আয়োজতি জনসভায় তনিি এই আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলনে, ‘কারা নৌকায় ভোট দবেনে, তারা হাত তুলে দখোন।’ এ সময় জনসভায় উপস্থতি জনতা হাত তুলে নৌকায় ভোট দওেয়ার অঙ্গীকার কর।ে

উল্লখ্যে, ৫ বছর পর যশোর সফর করনে শখে হাসনিা। এ সময় র্বতমান সরকাররে বশে কছিু উন্নয়ন র্কমকাণ্ডরে উদ্বোধন এবং  ভত্তিি প্রস্তর স্থাপন করনে প্রধানমন্ত্রী।

৩২ মনিটিরে বক্তব্যে শখে হাসনিা বলনে, ‘বাংলাদশে এগয়িে যাচ্ছ,ে এগয়িে যাব।ে আমরা সুনর্দিষ্টি লক্ষ্য নয়িে দশে চালাই। বাংলাদশেকে ক্ষুধা ও দারদ্র্যিমুক্ত দশে হসিবেে গড়ে তুলবো।’ তনিি  বলনে, ‘আমি শখে হাসনিা, বঙ্গবন্ধু কন্যা। র্দুনীতি করতে ক্ষমতায় আসনি,ি এসছেি জনগণরে কল্যাণ করত।ে’

বএিনপ-িজামায়াত জোটরে শাসন আমলরে কথা তুলে ধরে শখে হাসনিা বলনে, ‘হত্যা, খুন, মানুষ পোড়ানো ও ধ্বংস করা এটাই তাদরে কাজ।’

২০১৪ সালে নর্বিাচন ঠকোনোর নামে তাদরে আন্দোলনরে কথা স্মরণ করয়িে দয়িে প্রধানমন্ত্রী বলনে, ‘আমরা রাস্তা কর,ি তারা রাস্তা কাট।ে আমরা গাছ লাগাই, তারা কাট।ে ধ্বংসাত্মক কাজ যারা কর,ে তারা দশেরে মঙ্গল ও কল্যাণ করতে পারে না। বএিনপ-িজামায়াত যখনই সুযোগ পায়, মানুষরে ওপর অত্যাচার কর।ে লুটপাট, র্দুনীত,ি মানুষ খুন কর।ে আপনারা নশ্চিয়ই ভুলে যানন,ি নর্বিাচন ঠকোনোর নামে ২০১৪ সালে তারা কী করছেলি।’

বএিনপরি শাসন আমলরে সঙ্গে নজিদেরে শাসন আমলরে কথা তুল ধরে প্রধানমন্ত্রী বলনে, ‘মানুষ সামনরে দকিে এগোয়, তারা পছেনরে দকিে চল।ে ভূতরে পা পছেনরে দকিে চল।ে’ তনিি বলনে, ‘আমরা বজিয়ী জাতি হসিবেে বশ্বিসভায় মাথা উঁচু করে এগয়িে যতেে চাই। ভক্ষিা চয়েে এদশে চলবে না। মাথা উঁচু করে চলবো; এটাই  আমদরে লক্ষ্য। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে এদশে এগয়িে যায়, মানুষরে কল্যাণে কাজ করে যায়। আমরা উন্নয়ন কর,ি বএিনপ-িজামায়াত জোট কী কর?ে তারা কবেল মানুষ খুন করতে পার।ে’

জলো আওয়ামী লীগরে সভাপতি শহদিুল ইসলাম মলিনরে সভাপতত্বিে জনসভায় আওমী লীগরে কন্দ্রেীয় নতো স্থানীয় ও আশপাশরে জলোর সংসদ সদস্য, জলোর বভিন্নি র্পযায়রে নতোরা বক্তব্য রাখনে।

শখে হাসনিার জনসভাকে কন্দ্রে করে র্বনলি সাজে সজেছেে যশোর শহর।  ঈদগা মাঠ ছোট হওয়ায় বশেরি ভাগ মানুষ পুরো শহর জুড়ে ছড়য়ি-েছটিয়িে শখে হাসনিার বক্তব্য শোনে মাইকরে সামনে দাঁড়য়ি।ে সকাল থকেইে যশোর শহর মছিলিরে শহরে পরণিত হয়। স্লোগানে মুখরতি হয়ে ওঠে পুরো শহর। অনকেইে সভাস্থলে প্রবশে করতে না পারায়  শহররে প্রায় ১২ টি পয়ন্টেে প্রজক্টেররে মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শোনার ব্যবস্থা করা হয়।

জনসভায় আরও বক্তব্য রাখনে আওয়ামী লীগরে সভাপতমিণ্ডলীর সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টার্চায, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুউল আলম হানফি, আবদুর রহমান, সাংগঠনকি সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, সংসদ সদস্য কাজী নাবলি আহমদে, রণজতি রায়, মনরিুল ইসলাম মনরি, স্বপন ভট্টার্চায, বীরনে শকিদারস প্রমুখ।