ঘরোয়া পদ্ধতিতে দূর করুন খুশকি

 
 

২৩৩৪

খুশকি সমস্যা থেকে রেহাই পেতে ব্যবহার করা যেতে পারে ঘরোয়া এবং সহজলভ্য কিছু উপাদান।

শুষ্ক ত্বক, ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমণ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস এবং অন্যান্য ত্বকের সমস্যার কারণে মাথায় খুশকি হতে পারে। তাছাড়া শীতের সময় আবহাওয়া শুষ্ক হয়ে যাওয়ার কারণে এবং মাথার ত্বক অপরিষ্কার রাখলেও খুশকি হতে পারে।

ভারতীয় ত্বক বিশেষজ্ঞ এবং এনহ্যান্স ক্লিনিকের কর্ণধার মনোজ খান্না ঘরোয়া কিছু উপাদান ব্যবহার করে মাথার ত্বক থেকে খুশকি দূর করার কিছু উপায় জানান।

বেকিং সোডা: চুল ভিজিয়ে নিয়ে মাথার ত্বকে একমুঠো বেইকিং সোডা ছড়িয়ে হালকা হাতে মালিশ করতে হবে। এরপর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে। বেইকিং সোডা মাথার ত্বক পরিষ্কারের পাশাপাশি যে কোনো ফাংগাসের সংক্রমণ রোধে সহায়তা করবে।

অ্যাসপেরিন: অ্যাসপেরিন ট্যাবলেটে রয়েছে সিলিসাইলিক অ্যাসিড যা অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ শ্যাম্পুতেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে। তাই খুশকি থেকে রেহাই পেতে দু’টি অ্যাসপেরিন ট্যাবলেট গুঁড়া করে খানিকটা শ্যাম্পুর সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণ মাথার ত্বকে লাগিয়ে দুই মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে সাধারণ শ্যাম্পু দিয়ে আবার চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

মাউথওয়াশ: মাথার ত্বক থেকে খুশকি দূর করতেও এই উপাদান বেশ কার্যকর। শ্যাম্পু করার পর মাথার ত্বক ও চুল অ্যালকোহলযুক্ত মাউথওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। মাউথওয়াশের অ্যান্টি-ফাংগাল উপাদান খুশকি প্রতিরোধে সাহায্য করে। তবে এতে চুল রুক্ষ হয়ে যেতে পারে তাই কন্ডিশনার ব্যবহার অপরিহার্য।

লবণ: পর্যাপ্ত পরিমাণে লবন নিয়ে তা মাথার ত্বকে ছড়িয়ে শুকনা অবস্থায় মাথার ত্বক ম্যাসাজ করতে হবে। এতে মাথার ত্বক পরিষ্কার হবে এবং ফাংগাসের সংক্রমণও রোধ হবে। এরপর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

রসুন: রসুনে রয়েছে অ্যান্টি-ফাংগাল উপাদান, যা খুশকি রোধে সহায়ক। শুধু রসুনের রসই খুশকি দূর করতে সহায়ক। তবে রসুনের গন্ধ দূর করতে চাইলে রসুন ছেঁচে মধুর সঙ্গে মিশিয়ে মাথার ত্বকে লাগাতে হবে। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে।