কোটা সংস্কারের দাবিতে শাবির প্রধান ফটকে শিক্ষার্থীদের অবস্থান

 
 
34343434
শাবি প্রতিনিধি :: সব ধরনের সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে সারা দেশের শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের ন্যায় আন্দোলনে নেমেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।
সোমবার সকাল ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তারা অবস্থান নেয় এবং শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করতে থাকে।
রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয়া শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল নিক্ষেপের  ঘটনায়  দিনব্যাপী ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেয় শাবির কোটা সংস্কার আহ্বায়ক কমিটি। এ প্রেক্ষিতে সকাল ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে অবস্থান করে তারা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পরবর্তীতে পৌনে ৮টার দিকে শাবি শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা প্রধান ফটকে এসে তাদেরকে গেট অবরোধ না করার অনুরোধ করে। পরে শিক্ষার্থীরা গেটের পাশেই অবস্থান করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে অল্প কিছু বিভাগে দু-একটা ক্লাস-পরীক্ষা হয়েছে বলে ক্যাম্পাস সূত্রে জানা গেছে।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, কোটা সংস্কারের দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছে তারা। কোন ধরনের বৈষম্যের সাথে আপোষ করবে না তারা।
শাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান বলেন, অহিংস আন্দোলন করার গণতান্ত্রিক অধিকার এই দেশে সকলেরই রয়েছে। আমরা তাদেরকে বলেছি আপনারা অহিংস আন্দোলন করতে পারেন তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ করে নয়।
এদিকে আন্দোলনকে বানচাল করতে ইমরান খানের উপর অভিযোগ উঠেছে। শাহপরাণ হল থেকে আন্দোলনে আসার সময় শাবি ও সিলেট বিভাগীয় সম্বন্বয়ক মোঃ নাসির উদ্দিনের ফোন কেঁড়ে নিয়ে হলে দেড় ঘণ্টা আটকিয়ে রাখে শাখা ছাত্রলীগ। তবে এমন নেক্ককাজনক ঘটনা ইমরান খানের উপস্থিতিতে ঘটানো হয়েছে বলে জানা গেছে। পরবর্তীতে বিষয়টি জানাজানি হলে তার ফোন দিয়ে দেওয়া হয়।
শাবি ও সিলেট বিভাগীয় সম্বন্বয়ক মোঃ নাসির উদ্দিন জানান, হল থেকে আসার সময় মোবাইল ফোন কেঁড়ে নিয়ে তাকে  শাহপরাণ হলের গেস্ট রুমে তাকে দেড় ঘণ্টা আটকিয়ে রাখা হয়। কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী আমাদের আন্দোলন চলবে। আজ ক্যাম্পাসে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলের অনুমতি চাওয়া হলে আমাদেরকে অনুমতি দেয়নি শাবি প্রশাসন।
এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে কোন ধরনের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলের অনুমতি দিবেন না বলে জানান শাবি প্রক্টর জহীর উদ্দিন আহমদ।
বর্তমানে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ বিভিন্ন ধরনের অগ্রাধিকার কোটা রয়েছে। আর বাকি ৪৪ শতাংশ নিয়োগ হয় মেধা কোটায়। এজন্য এই কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। শাহবাগে পুলিশের টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৩০ জন আন্দোলনকারী আহত হয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এছাড়া তিন পুলিশ সদস্য ও এটিএন বাংলার ক্যামেরাম্যান মনির আহত হয়েছেন।