অবিশ্বাস্য মাইলেজের ইলেকট্রিক বাইক

 
 

4466

অনেকে বলে থাকেন ইলেকট্রিক বাইকের গতি কম। মোটর বাইকের মত গতির ঝড় তোলা যায় না এতে। কেউ কেউ অভিযোগ তোলেন ইলেকট্রিক বাইকে বেশিক্ষণ চার্জ থাকে না। তাই এটি চালিয়ে লং জার্নিতে বের হওয়া যায় না। কিংবা ইলেকট্রিক বাইক মোটর বাইকের মত স্টাইলিশ নয়। ইলেকট্রিক বাইক নিয়ে এমন হাজারো অভিযোগ পাওয়া যাবে। এসব অভিযোগ তারাই তোলেন যাদের ইলেকট্রিক বাইক সম্পর্কে খুব বেশি একটা ধারনা নেই। ইলেকট্রিক বাইকের নিন্দুকের মুখ বন্ধ করে দিতে বাজারে এলো ইমপালসের ইলেকট্রিক বাইক।

এই বাইকটি ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার গতিতে ছুটতে পারে। মহাসড়কে ১০০ কিলোমিটার গতি চাট্টিখানি কথা নয়। অনেক মোটর বাইকও ১০০ কিলোমিটার গতি তুলতে পারে না। অন্যদিকে এই বাইকটিতে একবার চার্জ দিলে টানা ২২৫ কিলোমিটার পথ চলতে পারে। এটিতে দ্রুতই চার্জ দেয়া যায়। বাইকটিতে সম্পূর্ণ চাজ দিতে সময় লাগে মাত্র সাড়ে তিন ঘন্টা।

ইলেকট্রিক বাইকটির মোটর ৫৪ হর্সপাওয়ারের। মোটর বাইকের মতই এটির গঠন। আছে স্টং সাসপেনশন, ডিস্ক ব্রেক, হেড লাইট এবং টেইল লাইট। এটির স্প্রিডোমিটার ডিজিটাল। এটাতে কতটুকু চার্জ রয়েছে সেটা দেখার ব্যবস্থা রয়েছে। এমনকি অবশিষ্ট চার্জে কত কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয়া যাবে তাও জানিয়ে দেবে স্প্রিডোমিটার।

ইমপালসের এই ইলেট্রিক মোটর বাইকটির ওজন ৪৬০ পাউন্ড।

যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে এই ইলেকট্রিক বাইকটির মূল্য ১৯ হাজার ৯৯৯ ডলার। বাংলাদেশি টাকায় এটির মূল্য দাঁড়ায় ১৫ লাখ ৫৬ হাজার টাকা।